Saturday, April 17th, 2021




ধনবাড়ী উপজেলা সহকারী কমিশানার (ভূমি) হাসান মোঃ হাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর আমারা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তিনি তার নিজের জমি বলে দাবি করেছে। স্থানীয় কৃষকরা এতে করে ব্রিজটিতে চলাচলের জন্য বিপাকে পড়েছেন। এ ব্যাপারে দ্রæই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ব্রিজের মাটি কেটে নিয়ে গেলো প্রভাবশালী, চলাচল বন্ধ

মৌসুমী তাজনীন মৌ, (ধনবাড়ী, টাঙ্গাইল): টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড়ের চাতুটিয়া গ্রামে ভেকু দিয়ে ব্রিজের সরকারী রাস্তার মাটি কেটে সড়কের জয়গা বেদখল করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক প্রভাবশালী আমজাদ আলী ছেলে মোঃ হারুন অর রশিদ (ভেন্ডা) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

মাটি কাটা রাস্তা’র ছবি ফেসবুকে ব্যাপকভাবে ভাইরাল হলে ধনবাড়ী উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসে। বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশানার (ভূমি) হাসান মোঃ হাফিজুর রহমান ও ধনবাড়ী পৌর মেয়র মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বকল সহ পুলিশ প্রশাসন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

স্থানীয়রা জানায়, চাতুটিয়া গ্রামের মৃত আমজাদ হোসেনের ছেলে হারুন ভেন্ডারের রাস্তার পাশে ধানের জমি থাকায় তিনি ১৩ এপ্রিল সরকারী রাস্তার অর্ধেক ভেকু দিয়ে মাটি কেটে সড়কের জায়গা দখল করে এবং তার নিজের জমি বলে দাবী করে। এসময় স্থানীয়রা বাঁধা দিলে তাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। এতে এলাবাসী ভয়ে পেয়ে আর কিছু বলেনি। বর্তমানে ব্রিজটি দিয়ে এলাকাবাসীর চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে করে ওই প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েছেন এবং উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় কৃষক সুরুজ্জামান, আলতাফ, লিমন, তোফাজ্জল, আনোয়ারসহ আরো অনেকেই জানায়, বর্তমানে আমরা এ অঞ্চলের কৃষকরা ক্ষেতের ধান কেটে জমির ফসল ঘরে নিতে পারছি না। চরম ভোগান্তিতে পড়েছি। রাস্তাটি পুনরায় মেরামতের দাবী জানায়। আমারা এ ব্যাপারে পৌর মেয়র ও স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামানা করছি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রভাবশালী হারুন অর রশিদ ভেন্ডার জানান, রাস্তার ভিতরে আমার জায়গা আছে। তাই আমি রাস্তা কেটে ফেলেছি তাতে মানুষের সমস্যা কী! আমি এ ব্যাপারে আপনাদের সাথে কথা বলতে চাই না।

ধনবড়ী পৌর মেয়র মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বকল জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করেছি। সরকারী রাস্তা দখলের জন্য তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ধনবাড়ী উপজেলা সহকারী কমিশানার (ভূমি) হাসান মোঃ হাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর আমারা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তিনি তার নিজের জমি বলে দাবি করেছে। স্থানীয় কৃষকরা এতে করে ব্রিজটিতে চলাচলের জন্য বিপাকে পড়েছেন। এ ব্যাপারে দ্রæই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category