Tuesday, April 13th, 2021




‘দুর্ভাগা’ মোস্তাফিজ শেষ পর্যন্ত খরুচে

‘দুর্ভাগা’ মোস্তাফিজ শেষ পর্যন্ত খরুচে

কালের সংবাদ ডেক্স: রাজস্থান রয়্যালসে এবারই প্রথমবার খেলছেন। প্রথম ম্যাচেই একাদশে সুযোগও পেলেন মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু কাজে লাগাতে পারলেন কি? সবমিলিয়ে পারফরম্যান্সকে কিছুতেই ‘আপ টু দ্য মার্ক’ বলা যাবে না, যদি দুর্ভাগ্যকে পাশে সরিয়ে রাখা যায়।

রাজস্থানের হয়ে প্রথমবার খেলতে নেমে ৪ ওভারে দিয়েছেন ৪৫ রান, পাননি উইকেটের দেখা। কিন্তু এতটাই কি খারাপ বোলিং করেছেন মোস্তাফিজ?শেষ ওভারটি বাদ দিলে উত্তর হবে- না।

প্রথম তিন ওভারে দুটি উইকেট পেতে পারতেন মোস্তাফিজ। খরচ করেছিলেন ৩০ রান। পাঞ্জাব কিংসের রানপাহাড়ের ম্যাচে (২২১) যেটাকে খুব খারাপ বলার সুযোগ নেই।

কিন্তু দুইবার উইকেট পাওয়ার সুযোগবঞ্চিত হওয়া মোস্তাফিজ শেষ ওভারে এসে তালগোল পাকিয়ে ফেললেন। ১৯তম ওভারে চাপের মুখে বল করতে এসে নো-বল দিলেন, দুটি বাউন্ডারিও হজম করলেন। দিলেন ১৫ রান। অথচ আগে উইকেট পেলে শেষটা আরও ভালো হতে পারতো।

স্যামসন ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে মোস্তাফিজকে আক্রমণে নিয়ে আসেন। কিন্তু কাটার মাস্টারের হাতে নতুন বলে তুলে দেয়ার ভরসা পেলেও তার আবেদনে ভরসা করতে পারেননি স্যামসন।

নিজের দ্বিতীয় বলেই উইকেট পেতে পারতেন মোস্তাফিজ। তার সুইং ডেলিভারি পায়ে লেগেছিল মায়াঙ্ক আগরওয়ালের, আবেদনও করেছিলেন ফিজ। কিন্তু আম্পায়ার সে আবেদনে সাড়া দেননি।

পাঞ্জাবের তখনও এক উইকেট পড়েনি। স্যামসন সেই সুযোগটা নিতে পারতেন। কিন্তু কি মনে করে রিভিউ নিলেন না রাজস্থান দলপতি। পরে যেটা আফসোসে পুড়িয়েছে তাকে।

কেননা রিপ্লেতে দেখা যায়, মোস্তাফিজের ডেলিভারিটি স্পষ্টতই মিডল স্ট্যাম্প হিট করতো। অধিনায়কের ভুলে নিশ্চিত একটি উইকেট থেকে বঞ্চিত হয়েছেন কাটার মাস্টার। ওই ওভারে দারুণ বল করে শেষ ডেলিভারিতে বাউন্ডারি হজম করেন তিনি। সবমিলিয়ে নিজের প্রথম ওভারে খরচ করেন ১১ রান।

পঞ্চম ওভারে আবারও মোস্তাফিজকে আক্রমণে নিয়ে আসেন রাজস্থান অধিনায়ক। এবারও খারাপ করেননি। একটি বাউন্ডারি হলেও ওভারে দেন মোটে ৮ রান। দুই ওভারে ১৯ খরচ করা মোস্তাফিজকে এরপর বড় বিরতি।

১৫তম ওভারে আবার বল হাতে পান টাইগার পেসার। ওই ওভারে আরেক দুর্ভাগ্য। প্রথম বলটিই তুলে দিয়েছিলেন ১৫ বলেই ৩৯ তুলে ফেলা দীপক হুদা। লং অফে দৌড়ে সেই ক্যাচটি নিতে যান দুজন-বেন স্টোকস আর জস বাটলার। বাটলার হাতে নিতে চাইলে স্টোকস সরে যান, কিন্তু বাটলার ফেলে দেন বল। আবারও উইকেটবঞ্চিত হন মোস্তাফিজ। একটি ছক্কাসহ এবার ১১ রান দেন তিনি।

এরপর আরেকটু বিরতি দিয়ে ১৯তম ওভারে সুযোগ পান ফিজ। আর ওই ওভারটি করেন সবচেয়ে বাজে। ১৫ রান খরচ করে আগের ভালো বোলিংও যেন ভুলিয়ে দেন।

একে  আরিফ/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category