0

১৮ ফেরুয়ারি অনুষ্টিত হবে কবি গিয়াস উদ্দিনের লোক উৎসব

হাসান আহমদ, ছাতক, সুনামগঞ্জ: ছাতক প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, প্রাচীনতম দৈনিক যুগভেরী পত্রিকার সাংবাদিক মরমী কবি গিয়াস উদ্দিন আহমদ ও মুজিববর্ষকে স্মরনীয় করার লক্ষে গিয়াস উদ্দিনের লোক উৎসব” সফলের লক্ষে উদযাপন পরিষদের ব্যানারে লোক গানের উৎসব পালনের লক্ষে ব্যাপক প্রস্ততি গ্রহন করেছেন দেশ-বিদেশে মাটিতে। প্রতিদিনেই পৃথক পৃথক ভাবে হচ্ছে প্রচার-প্রচারনা মতবিনিময় প্রস্ততি সভা অনুষ্টিত হচ্ছে। উদযাপন পরিষদের ব্যতিত্রুমী প্রচার-প্রচারনায় সাধারন মানুষদেরকে আকৃষ্ট করে তোলা হয়।

উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের লোক উৎসব নিয়ে পোষ্টার ব্যানার টাঙ্গানো হয়। দেশ স্বাধীনতার ৪৯ বছর পর এবার শুরু হচ্ছে গোবিন্দগঞ্জ এলাকায় একজন খ্যাতিমান মরমী কবি গিয়াস উদ্দিন আহমদের ”লোকউৎসব” এ উৎসবে দেশ-বিদেশে নাম-দামি কবি সাহিত্যিকদের আগমন ঘটবে। তাকে ঘিরেই চলছে প্রচার –প্রচারনা সভা ও গনমাধ্যম ফেইসবুকে লোকগানের উৎসবকে স্বাগত জানিয়ে মতামত শেয়ার দেয়ার ঝড় বইছে দেশ-বিদেশে। এ অনুষ্টানকে নেটের মাধ্যমে ভাইরাল করেছেন।

ডিজিটাল ডিজাইনের গানের মঞ তৈরির প্রস্ততি চলছে। এদিকে আউল বাউল ও মরমী কবিদের উরব স্থান হচ্ছে ছাতকে গোবিন্দগঞ্জ এলাকায় এখানে জন্মগ্রহন করেছেন ফকির পুথিঁ বিশারত মরমী কবি আফজল শাহ ওরফে আরমান আলী.বাউল কবি দুব্বিন শাহ.মরমী কবি মান উল্লাহ, মরমী কবি সাবাল আলী,মরমী কবি আছদ্দ উল্লাহ,মরমী কবি গিয়াস উদ্দিন আহমদ,মরমী কবি হাসিম আলী শাহ ,মরমী কবি আশুশাহ.মরমী কবি আজমান আলী,মরমী কবি সুরুজ আলী,ক্বারী আমির উদ্দিনসহ অসংখ্য লেখকদের জন্মভুমি হিসাবে পরিচিত রয়েছে।এদের মধ্যে অনেক খ্যতিমান কবিরা প্রচারবিমুখ রয়েছেন বলে উদযাপন পরিষদ জানান।

৪৯ বছর পর লোক উৎসবকে ঘিরে লেখক,কবি, সাংবাদিক, গীতিকার, সুরকার, সাহিত্যিক, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, আইনজীবি, ব্যবসায়ি ও সমাজসেবী,শ্রমিকসহ সকলশ্রেনীর মানুষের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা ও প্রতিদিন বিকালে গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পয়েন্ট চেয়ারম্যান মাকেটে সকল শ্রেনীর মানুষদের এক মিলন মেলায় পরিনত হয়ে উঠেছে। আসছে ১৮ ফেরুয়ারি অনুষ্টিত হবে সুনামগঞ্জ জেলাধীনের প্রানকেন্দ্র প্রাচীনতম গোবিন্দগঞ্জ বাজারে ট্রাফিক পয়েন্টে এলাকায় বালু মাঠে অনুষ্টিত হচ্ছে মরমী কবি গিয়াস উদ্দিন আহমদের লোক উৎসব গানের ছন্দে ছন্দে মধুর সুরে লোক উৎসবের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে উদযাপন পর্ষদ।

তাদের আয়োজিত লোক উৎসবে ভোটের বয়ান, ভাটিয়ালী, দেহতত্ত্ব. মারফতি,মুশিদী,পল্লীগীতি, সিলেটী- গীত, জারি-সারি.দামাইল, পুঁথি, মালজুড়া, ও আঞ্চলিক গান পরিবেশন করবেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের খ্যতিমান কন্ঠ শিল্পীরা।এ লোক উৎসব কে কেন্দ্র করেই উপজেলাজুড়েই চলছে প্রচার ও হাটবাজারে টাঙ্গানো হচ্ছে ডিজিটাল লোক উৎসবের ব্যানারসহ নানা আমেজ দেখা দিয়েছে।লোক উৎসব শুরু হবে ১৮ ফেরুয়ারি দুপুর ২টায় থেকে।মরমী কবির ভক্তবৃন্দের মিলন মেলা পরিনত হয়ে উঠবে উদযাপন পরিষদের আহবায়ক ওলিউর রহমান চৌধুরী বকুল ও মহিউদ্দিন দাবি করেন।

এ উপলক্ষে উপদেষ্টা,বহি বাংলাদেশ ,অর্থ,প্রচার ও প্রকাশনা,গান বাছাইসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা পৃথক পৃথক কমিটি গঠন করেছে মরমী কবি গিয়াস উৎসব উদযাপন পর্ষদ। এ অনুষ্টানে সাবিক সহযোগিতা করবেন উপজেলা প্রশাসন।বাংলাদেশে খ্যতিয়ান কন্ঠ শিল্পিরা মরমী কবি গিয়াস উদ্দিন আহমদের লেখা গান গেয়ে দর্শক শ্রোতাদের মাতিয়ে তোলার হবে।

এছাড়া সুনামগঞ্জ ,সিলেটসহ বাংলাদেশে সেরা লোক শিল্পীরা মধুর সুরে সংগীতপ্রেমীদের উচ্ছসিত উপস্থিতিতে মুগ্ধতা করবেন বলে মত প্রকাশ করেন সুরকারবৃন্দরা। এমন আযোজনে অনুষ্ঠান সাজানো হচ্ছে তা দেখে শ্রেুাতারা অনেক ইতিবাচক অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরবে। এমন অনুষ্ঠানে প্রত্যেক শিল্পীদের অন্তত একবার আসা উচিৎ বলে সচেতন মহল অভিমত ব্যক্ত করেন।লোক উৎসব আয়োজন দেখে সকলশ্রেনীর মানুষের মনজয় করবে। দিনব্যাপী গানের উৎসবমুখর এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করে ছাতকে ক্যাবল।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category