সর্দি-কাশি সারাতে যা করবেন

কালের সংবাদ অনলাইন ডেস্ক: ঋতু বদলের সময় হঠাত্‍ করে সর্দি-কাশির সমস্যা হতেই পারে। আর এই নিয়ে পড়তে হয় ভোগান্তিতে। এমন অসুখ, একা একা সারেও না আবার ডাক্তারের কাছে গেলেও এককাড়ি টাকা খরচ। তাই ঘরোয়া কিছু উপায় জেনে নিন যার মাধ্যমে সর্দি-কাশি থেকে দূরে থাকা সম্ভব। আর যদি এসবের কোনোটাতেই কাজ না হয় তবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে ওষুধ খেতে হবে।

সর্দি-গলা ব্যথা কিংবা শুকনো কাশি সারাতে খুব কাজে দেয় লবণজলে গার্গল।

ঠান্ডা লেগে সারা রাত কাশি হচ্ছে ? শোয়ার আগে এক চামচ মধু খেলে আরাম পাবেন। খুব ভালো হয় যদি অল্প গরম জলে মধুটা দিয়ে ছোট ছোট সিপে খাওয়া যায়।

চা তৈরি করুন অল্প আদা দিয়ে। শোয়ার ঠিক আগে সেটা খান।

গ্রিন টিও খুব ভালো কাজে দেয়। এতে কাশির চোটে ঘুম ভেঙে উঠে বসে থাকতে হবে না।বালিশের পিঠের দিকটা একটু তুলে শুতে পারেন, তাতে সারা রাত কাশির দমক একটু কম ভোগাবে।

সারারাত যদি নাক বন্ধ থাকে, তাহলেও ঘুম আসবে না। বরং মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার চেষ্টা করলে কাশির দমক বাড়বে। এই পরিস্থিতিতে বাম বা নেজাল ড্রপের শরণাপন্ন হন।

তুলসিপাতা, আদা, গোলমরিচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, মৌরি, তেজপাতা দুই কাপ জলে ফোটাতে আরম্ভ করুন। মিশ্রণটা কমে আধ কাপ মতো হলে নামিয়ে ছেঁকে নিন। মধু বা তালমিছরি মিশিয়ে সেটা পান করুন।

সর্দি-কাশি সারানোর সবচেয়ে সহজ ওষুধ হলো পেঁয়াজ-পানি। শুনতে একটু অন্যরকম লাগলেও পেঁয়াজ-পানি আমাদের ভেতর থেকে সতেজ করে তোলে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে ভাইরাসের আক্রমণ রুখে দেয়।

একটা মাঝারি মাপের পেঁয়াজ কুচি কুচি করে কেটে নিন। একটা ছোট বাটি ভরে পানি নিন। এই পানিতে পেঁয়াজ কুচি ফেলে দিন।৬-৮ ঘণ্টা ভিজতে দিন। এর সঙ্গে ২-৩ চামচ মধু মিশিয়ে দিন দুইবার করে খান। শিশুদের জন্যও এই পেঁয়াজ-পানি একইরকম উপকারী। তবে শিশুদের দিন একবার করে পেঁয়াজ-পানি দেবেন।

 

এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category