লুডু ও কেরাম

মোবাইল লুডু ও ক্যারামের মাধ্যমে চলছে জমজমাট জুঁয়া

সিরাজুল ইসলাম আপন, পাবনা: পাবনার ভাঙ্গুড়ার মোবাইল ফোন লুডু ও ক্যারাম বোর্ডের মাধ্যমে চলছে জমজমাট জুঁয়ার আসর। ৪ জন খেলোয়াড়ের মাধ্যমে প্রত্যেকে ১০০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত জমা দিয়ে ক্যারাম খেলে।খেলায় যিনি প্রথম ও দ্বিতীয় হয়,তারাই মূলত এই টাকা পায়। আর যারা দু’জন হেরে যায় তারাই এই টাকা খোয়ায়।

এভাবেই রীতিমত চলছে ভাঙ্গুড়ার হাট-বাজার, বাসস্ট্যান্ড,কলেজ গেট ও রাস্তার মোড়ে মোড়ে চা-স্টল গুলোতে অভিনব কায়দায় চলছে এই জমজমাট জুয়া খেলার আসর। খেলোয়াড়রা হলেন উঠতি বয়সের কিশোর, শ্রমিক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও স্কুল কলেজের ছাত্র । প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু হয়ে মধ্য রাত পর্যন্ত চলে ভাঙ্গুড়ার অসংখ্য চা-স্টলে এই জমজমাট জুঁয়া খেলা।

এতে করে আর্থিক দিক দিয়ে ক্ষতি স্বাধনের পাশাপাশি মানসিক বিপর্যয়ের সম্মুক্ষিণ হয়ে পড়েছে এই খেলোয়াড়রা।এ খেলায় বাজি ধরে নিস্ব হয়ে পড়েছে অনেকেই। সৃষ্টি হচ্ছে পারিবারিক অশান্তি।বিভিন্ন শ্রেনী পেশার ব্যবসায়ীরা ও জড়িয়ে পড়েছে এ জুঁয়ার ক্যারামবোর্ডের কারনে। এতে সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে অনেক খেটে খাওয়া পরিবার। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাড়তি আয়ের আশায় চা-স্টল গুলোতে ক্যারাম বোর্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এক দিকে রয়েছে চায়ের ব্যবসা অন্যদিকে টেলিভিশন।

একাধিক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, টাকা দিয়ে ক্যারাম আর মোবাইল ফোনে লুডু খেলা এখন কিছু কিছু মানুষের নেশায় পরিণত হয়েছে। এসকল বিষয়ে সবাইকে সামাজিকভাবে সচেতনতা বাড়ানোর অগ্রগতি ও প্রশাসনকে ও পদক্ষেপ নিতে হবে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, বিষয়টা সম্পর্কে অবগত করার জন্য ধন্যবাদ থানা প্রশাসনের সাথে কথা বলে খুব দ্রুত অভিযান পরিচালনা করা হবে।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category