মুফতি মো. আজিজুল ইসলাম আলোকিত মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন কর্তৃক শেরে বাংলা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড-২০১৯ -এ ভূষিত

কালের সংবাদ ডেস্ক: আলোকিত মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ও জীবনের জন্য জীবন ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত সামাজিক অপরাধ দমনে সরকার, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষাবিদ ও সুশীল সমাজের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভা ও গুণীজন সম্মাননা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গত ১২ জুলাই ২০১৯ শাহবাগ কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীর ভি,আই,পি সেমিনার হলে মুফতি মো. আজিজুল ইসলাম অধ্যক্ষ, পলাশবাড়ী চাচাইবাড়ী ফাজিল মাদ্রাসা পোরশা, নওগাঁ’কে শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য শেরেবাংলা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড-২০১৯ প্রদান করা হয় । গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড পাওয়ার পর মুফতি মো. আজিজুল ইসলাম বলেন, শেরেবাংলা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড একটি মর্যাদাপূর্ণ এ্যাওয়ার্ড । এ এ্যাওয়ার্ড পেয়ে আমি অত্যন্ত আনন্দিত ।

ঊক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন,  বিচারপতি মো. নিজামুল হক নাসিম, আপিল বিভাগ বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট,  প্রধান আলোচক ড. মো. জাকারিয়া, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এবং সভাপতিত্ব করেন মুহাম্মদ আতা উল্লাহ খান চেয়ারম্যান  আলোকিত মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের ।

মুফতি মো. আজিজুল ইসলামের বর্ণাট্য জীবনী বর্ননা করা হলো:

মুফতি মো. আজিজুল ইসলাম ১৯৮৯ ও ১৯৯১ সালে উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ ইসলামী শিক্ষাকেন্দ্র ছারছিনা দারুসসুন্নআত আলিয়া মাদ্রাসা থেকে কামিল হাদিস ও ফিকাহ বিষয়ে ডিগ্রী লাভ করেন । ১৯৯০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতক ও ১৯৯৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় হইতে ইসলামিক স্টাডিজ বিবাগে স্নাতকত্তোর ডিগ্রী লাভ করেন । ১৯৯০ সালে জামেয়াই আরবিয়া দারুর হেদায়েত পোরশা হইতে দাওরায়ে হাদীসে ১ম শ্রেণীতে ১ম স্হান অধীকার করেন ।

তিনি  মানবসম্পদ উন্নয়ন, লিডার্স অব ইনফ্লুয়েন্স, কোরলিডার্স হিউমান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট, ইন্টার গ্রুপ অব লিডার্স, এল,ও,আই, নারী নির্যাতন বিরুদ্ধ বিষয়ক,  আন্তধর্ম বিষয়ক সম্মেলন, জন্ম নিবন্ধন, সেনিট্রেশন, কুষ্ঠ রোগ প্রতিরোধ, পশুপাখি পালন, খামার প্রতিষ্ঠা, জঙ্গিবাদ বিরোধী আন্দোলন, রোভার স্কাউট, সেভ দা চিলড্রেন, এইস আই ভি (এইডস) ও জাতীয় প্রশিক্ষন কেন্দ্র নায়েম সহ দেশী বিদেশী বিভিন্ন প্রশিক্ষন গ্রহন করেন ।

তিনি মুাদ্দেস হাবিবুল্লাহ আবাদ কাম্যিল মাদ্রাসাা, বাগেরহাট ।  প্রধান পরীক্ষক ২০০৩-২০০৮ পর্যন্ত বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড ঢাকা । পর্যবেক্ষক কমিটি, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়,  কুষ্টিয়া । সভাপতি, জামিয়াতুল মোদারেছিন নওগাঁ জেলা শাখা । সাধারণ সম্পাদক, জমিয়তে হিজবুল্লাহ নওগাঁ জেলা শাখা । সভাপতি মানবাধিকার কমিশন, মহাদেবপুর উপজেলা শাখা । খন্ডকালীন ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমি রাজশাহী ও দিনাজপুর । পরিচালক, আরবি ভাষা শিক্ষার আসর, জাতীয় বেতার ভবন, আগারগাঁও, ঢাকা, ইত্রাদিতে সুনামও দক্ষতার সাখে দায়িত্ব পারন করেন ।

তিনি ধর্মবিষয়ক মন্ত্যনালয়ের অধীনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকারমে ইমামদের প্রতিযোগীতায় ইসলামি মূল্যবোধের প্রসার, আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যানমূলক কাজে গৌরবময় অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০০৮ সালে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ ইমাম নির্বাচিত হওয়ায় মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক সম্মাননা পদক ও সনদ লাভ করেন ।

২০১৭ ইং সালে রাজশাহী বিভাগের ( মাদ্রাসা পর্যায়ে) শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ নির্বাচিত, ২০১৬ ইং সালে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক অধিদিপ্তর, শিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তক প্রতিষ্ঠানিক কৃতিত্ব সনদ অর্জন। ২০১৬,২০১৭,২০১৮,২০১৯ ইং সালে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচিত, ২০১৬,২০১৭,২০১৮,২০১৯ ইং সালে তার প্রতিষ্ঠানটি উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান, ২০১৭ ইং সালে জেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে নির্বাচিত, ২০১০ সালে নওঁগা জেলার শ্রেষ্ঠ খামার প্রতিষ্ঠাকারী ইমাম হিসাবে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী কর্তৃক পুরস্কার অর্জন করে। ২০১১ সালে কৃষি অধিদপ্তর কর্তৃক নওগাঁ জেলার শ্রেষ্ঠ কৃষক নির্বাচিত।
তিনি মহাদেবপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী এনায়েতপুর গ্রামে মরহুম দছিন উদ্দিন সরকার ও মরহুমা ফজিরন বেগমের কনিষ্ঠ সন্তান । তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক, উভয়ই আল কুরআনের হাফেজ, ছেলে বাংলাদেশে কামিল ও মালেশিয়া ইউনিভার্সিটিতে অধ্যায়নরত, তার একমাত্র জামাতা ডাক্তার মো. জাফরুল কাউছার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ঢাকা এর নিউরো মেডিসিন বিভাগের এম, ডি কোর্স (নিউরোলজি) ও চাকুরীরত ।

এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category