Tuesday, April 6th, 2021




‘মাইকিংয়ে সীমাবদ্ধ’ কারওয়ান বাজারের স্বাস্থ্যবিধি

‘মাইকিংয়ে সীমাবদ্ধ’ কারওয়ান বাজারের স্বাস্থ্যবিধি

কালের সংবাদ ডেস্ক: ‘শ্রোতা ভাই ও বন্ধুগণ, আপনাদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, সরকার ঘোষিত সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাজারে ক্রয়-বিক্রয় করুন। মাস্ক ব্যতিত কেউ বাজারে প্রবেশ করবেন না।’ রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মাছের আড়ত থেকে মাইকে বার বার এ ঘোষণা ভেসে আসছিল। তবে বাস্তবে এসবের তেমন প্রতিফলন দেখা যায়নি।

যে স্থান থেকে মাইকে ঘোষণা ভেসে আসছিল ঠিক তার কয়েক গজ সামনেই রাস্তা ও ফুটপাতে ট্রাক থেকে মাছ নামাতে ও ঝুড়িতে করে তা বাজারে নিয়ে যাওয়ার কাজে ব্যস্ত শ্রমিকরা। অদূরেই মোটা কাঠ দিয়ে বরফ ভাঙা ও বাজার সংলগ্ন ফ্লাইওভারের নিচে বসে মাছ কাটায় ব্যস্ত কয়েকজন নারী-পুরুষ। কিন্তু মাইকে ঘোষণার দিকে ভ্রক্ষেপ নেই কারোই।

লকডাউনের দ্বিতীয় দিন (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কারওয়ান বাজার মাছের আড়ত ঘুরে এ দৃশ্য দেখা গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, মাছের বাজারে আসা ক্রেতাদের কারো কারো মুখে মাস্ক আছে। তবে মাছ বিক্রেতাদেরই স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করতে দেখা গেছে সবচেয়ে বেশি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বাধ্য করতে বাজার কমিটি বা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সদস্যকে দেখা যায়নি।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, লকডাউন থাকলেও রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ক্রেতারা বিভিন্ন ধরনের মাছ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। বাসায় কাটাকাটির ঝামেলা এড়াতে মার্কেটের বাইরে ফ্লাইওভারের নিচে ও রেললাইনের পাশ থেকে মাছ কাটিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। আর পাইকারি ক্রেতারা মাছ কিনে বিভিন্ন বাহনে করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় চলে যাচ্ছেন।

একাধিক মাছ বিক্রেতার সঙ্গে আলাপকালে মুখে মাস্ক না থাকার কারণ জানতে চাইলে কেউ বলছেন ‘মাস্ক পরে কাজ করতে কষ্ট হয়’, কেউ বলছেন ‘করোনা ধনীদের রোগ, গরীবের এ রোগ হয় না’; আবার কেউ বলেছেন ‘মাস্ক পরা থাকলে ক্রেতারা কথা বুঝতে পারে না, একই কথা বার বার বলতে হয়’।

এসব অজুহাতে তারা মাস্ক পরেন না। তাদের মধ্যে যাদের মুখে মাস্ক দেখা গেছে তারা সেটি সঠিকভাবে না পরে থুতনির নিচে বা কানে ঝুলিয়ে রেখেছেন।

কারওয়ান বাজারে লালবাগ থেকে আসা আজহার আলী এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘করোনার সংক্রমণরোধে সকলের সচেতন হওয়া একান্ত প্রয়োজন। মার্কেটের অধিকাংশ মাছ বিক্রেতার মুখে মাস্ক নেই। মার্কেট কমিটি মাইকে ঘোষণা দিয়ে দায় সারছে। মাছ বিক্রেতাসহ সবাইকে উদ্ধুদ্ধ করে মাস্ক পরানোর দায়িত্ব কেউ নিচ্ছে না।’

শুধু কারওয়ান বাজার মাছের আড়তই নয়, শাক-সবজি, ফলের বাজারেও অসংখ্য বিক্রেতাকে মাস্ক না পরে করে বেচা-কেনা করতে দেখা গেছে। সে তুলনায় মাস্ক পরা ক্রেতার সংখ্যা ছিল বেশি।

একে  আরিফ/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category