ভালবাসার সঙ্গী পেল রামসাগরের নীলগাইটি

মাসুদুর রহমান,  দিনাজপুর: রামসাগর উদ্যানে নারী নীলগাইয়ের সঙ্গে রাখা হয়েছে নওগাঁয় উদ্ধার হওয়া পুরুষ নীল গাইটিকে। দীর্ঘ পাঁচ মাস একাকিত্বের পর অবশেষে সঙ্গী পেয়েছে দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যানে থাকা নারী নীলগাইটি। সংশ্লিষ্টরা মনে করছে, এর মাধ্যমে দেশ থেকে বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীটির প্রজননের মাধ্যমে বংশবৃদ্ধি করা সম্ভব হবে।
বিলুপ্ত বিরল প্রজাতির নীলগাইয়ের সংখ্যা বাংলাদেশে এখন ২টি। গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও এবং এ বছর ২২ জানুয়ারিতে নওগাঁ এ দুটি নীলগাই ধরা পড়ে।
শনিবার ভোরে রাজশাহীর বন্যপ্রাণী উদ্ধার ও পুনর্বাসন কেন্দ্র থেকে রামসাগর জাতীয় উদ্যানে নিয়ে আসা হয়েছে প্রাণীটিকে। বর্তমানে একই প্রজাতির দুটি প্রাণীকে একসঙ্গে রাখা হয়েছে। দিনাজপুর সামাজিক বন বিভাগের কর্মকর্তা ও রামসাগর জাতীয় উদ্যানের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সালাম তুহিন জানান, নীলগাই বিরল প্রজাতির বাংলাদেশে বিলুপ্ত বন্যপ্রাণী।
প্রাণিটি গাই হিসেবে পরিচিত হলেও এটি মোটেও গরু শ্রেণির নয় বরং এটি এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে বড় হরিণবিশেষ প্রাণী। যার বিজ্ঞানিক নাম বোসেলাফাস ট্র্যাগোকামেলাস। ১০০ বছর আগে ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় নীলগাই দেখা যেত। দিনাজপুর রামসাগর জাতীয় উদ্যানে স্থান পেয়েছে নওগাঁয় উদ্ধার হওয়া পুরুষ নীলগাইটি। নীলগাইটিকে উদ্যানের নারী নীলগাইয়ের সঙ্গে রাখা হয়েছে।
রামসাগর জাতীয় উদ্যানের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সালাম তুহিন জানান, শুক্রবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাতে পুরুষ নীলগাইটিকে রাজশাহী থেকে দিনাজপুরে নিয়ে আসা হয়। রামসাগরে কৃত্রিম জঙ্গলে আগে থেকে রাখা নারী নীলগাইটির সঙ্গে একে রাখা হয়েছে। তাদের খাঁচার বেড়ার চারদিকে কাপড় দিয়ে আড়াল করে রাখা হয়েছে, যেন ভয় না পেয়ে স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারে। নীলগাই ভীত প্রাণী হাজারো লোকজন তাদেরকে এক নজর দেখতে আসছে রামসাগর জাতীয় উদ্যানটিতে।
তিনি জানান, নতুন জায়গায় আসার কারণে পুরুষ নীলগাইটি প্রথম দিন মানুষের সামনে খুব বেশি আসেনি। নারী নীলগাইটি মাঝে মধ্যে সামনে এলেও আবার চলে যায়। আজ রবিবার  পুরুষ ও নারী নীলগাই দু’টিকে একসঙ্গে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। এটা একটা ভালো দিক। ইতি মধ্যে  পুরুষ নীলগাইটির চলাফেরা স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে এবং দুজনের মধ্যে সক্ষতা তৈরী হয়েছে।
রামসাগর জাতীয় উদ্যানে সরেজমিন দেখা যায়, ১০ ফেব্রুয়ারি সরস্বতী পূজার কারনে হিন্দু ধর্মের হাজারো মানুষ দুর দুরন্ত থেকে রামসাগরের মন্দিরে আসছেন এবং নীলগাই জুটিকে দেখছেন। রামসাগরের কৃত্রিম জঙ্গলে মাঝখানে গাছের আড়ালে পুরুষ নীলগাইটি ঘোরাফেরা করছে। আর নীলগাইটিকে দেখতে পর্যটকরা ভিড় করছেন। কিন্তু নতুন পরিবেশের কারণে কিছুটা আড়ালে থাকছে নীলগাইটি।
রামসাগরে নীলগাই দু’টির পরিচর্যায় থাকা আব্দুর রহমান  জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নীলগাই দু’টির জন্য বুট, ছোলাসহ বিভিন্ন ধরনের খাবার দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু নতুন জায়গায় কারণে পুরুষ নীলগাইটি ঠিকমতো খাবার খাচ্ছিল না প্রথম দিনে, এখন খাওয়া দাওয়া কিছুটা স্বাভাবিক ভাবেই করছে।
নীলফামারী থেকে রামসাগর উদ্যানে পিকনিকে আসা সাইফুল আলম বলেন, আমি রামসাগরে একটি নীলগাই থাকার তথ্য জানতাম। কিন্তু আজ এসে দু’টি নীলগাই দেখে চমকে গেছি। আবার বেশ আনন্দও লাগছে। আশাবাদী বিলুপ্ত নীলগাই দম্পতির নতুন অতিথি আগামী বছর দেখতে পাবেন। উনি সুস্থ থাকলে আগামীতে তার পরিবারকে নিয়ে নীল গাই পরিবার টিকে দেখতে আসবেন।
এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category