বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন চাঁদপুর জেলার একমাত্র পরিবেশক- “এম.এল কর্পোরেশনকে” নিয়োগ

মতলব উত্তর: দেশের ৬৪টি জেলায় একটি করে প্রতিষ্ঠানকে পরিবেশক নিয়োগ করেন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন। চাঁদপুর জেলায় “এমএল কর্পোরেশন”কে একমাত্র পরিবেশক নিয়োগ করেন। গত ৯ অক্টোবর চিনি শিল্প ভবনে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন এর পক্ষে জনাব তাজুল ইসলাম, বিপনন প্রধান এবং “এম এল কর্পোরেশন” এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা- মাহবুবুর রহমান মীর, ও ব্যবস্থাপনা অংশীদার- আবদুল বাসেদ এর সাথে চুক্তিপত্র সাক্ষরিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন এর মাননীয় চেয়ারম্যান অজিত কুমার পালসহ উক্ত কর্পোরেশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে অজিত কুমার পাল বলেন, দেশের মাটিতে রোপিত আখ হতে দেশীয় চিনিকলে স্বয়ংক্রীয় মেশিনে উৎপাদিত এবং আকর্ষণীয় প্যাকেটে সংরক্ষিত ও স্বাস্থ্যসম্মত। কেমিক্যালমুক্ত ১০০% হালাল, প্রাকৃতিক ও ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, আয়রণ, ম্যাগনেসিয়াম ও ভিটামিনসমৃদ্ধ, পুষ্টিমানে ভরপুর ও স্বাদে অতুলনীয় এবং শিশু স্বাস্থ্যের উপযোগী। অন্য চিনি হতে অধিক মিষ্টি হওয়ায় চিনির পরিমাণ কম লাগে। আখের চিনি ন্যাচারাল, খাঁটি।

ভেজালমুক্ত আখের চিনিই হচ্ছে আসল চিনি। আখের চিনির এক একটি প্যাকেটকে বলা- “অ চধপশবঃ ড়ভ ঐবধষঃযু খরভব”তিনি আরও চিনির পাশাপাশি কেরুজ ও ভিনেগারের উপকারিতাসমূহ তুলে ধরে বলেন, ডায়াবেটিস রোগীদের সুক্রোজ বার্নিং-এ সহায়তা করে। প্রাকৃতিক জীবাণুনাশক হিসেবে কাজ করে। আরথ্রাইটিস রোগের উপশম হিসেবে কাজ করে।

হজমশক্তি বৃদ্ধি করে এবং খাবারের রুচি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আচার সংরক্ষণে সহায়তা করে এবং সালাদ, সবজি ও খাবার সুস্বাদু করে। বিনেগার এবং পানির মিশ্রণ (৫০ঃ ৫০) দ্বারা গার্গল করলে মুখের দুর্গন্ধ রোধসহ জীবাণু ধ্বংস হয়। বিপনন প্রধান তাজুল ইসলাম বলেন, সোনার দানা জৈবসার উৎকৃষ্টমানের। এ সার প্রয়োগে ফলন অধিক হয়। ফসল মোটা, তাজা ও সতেজ হবে, উৎপাদনের পরিমাণ বেশি হবে। কৃষক ভাই জানে, জৈবসার অধিক ফসল আনে’।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category