নওগাঁয় স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিলেন ঘাতক স্বামী!

 ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ,(নওগাঁ):  নওগাঁয় স্ত্রীকে হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন অবশেষে পাষন্ড স্বামী।গতকাল রবিবার  সাপাহার থানা পুলিশ ঘাতক স্বামীকে আটকের পর প্রাথমিকভাবে তা স্বীকার করেন। পরে নওগাঁ আদালতেও আজ সোমবার ১৬৪ ধারায় স্ত্রীকে হত্যার কথা জবানবন্দী দিয়েছেন। পরে তাকে আদালত জেলা কারাগারে প্রেরণ করেন। উল্লেখ্য, নওগাঁর সাপাহারে স্ত্রী রুমী (২৫) কে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বিষয়টি ডাকাতির ঘটনা বলে চালানোর চেষ্টা করেছিল স্বামী নজরুল ইসলাম (৩২)।

গত ১৯ অক্টোবর শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিদ্যানন্দী বাহাপুর গ্রামে নিশৃংস ঘটনাটি ঘটেছে। থানার (ওসি) আব্দুল হাই এর তৎপরতায় বিভিন্ন নাটকিয়তার পর স্ত্রী হত্যার দায় শিকার করেছেন স্বামী নজরুল ইসলাম। সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, খবর পেয়ে শনিবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে ফোর্স সহ ঘটনাস্থল পৌছালে বিষয়টি আমার কাছে রহস্য জনক মনে হয়েছে।

কোন পরকীয়া কিংবা স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সৃষ্ট কোন মন মালিন্যের কারণে সে তার স্ত্রীকে ঘুমের ঘোরে শ্বাস রোধ করে হত্যা করতে পারে এ নিয়ে এলাকায় খুব জোরালো গুঞ্জনও চলছিল। এটি কোন চুরি কিংবা ডাকাতির ঘটনা নয়, চুরি বা ডাকাতি হলে তারা ঘরের মধ্যে থাকা নগদ টাকা পয়সা, গহনা কিছুই নেয়নি সবই অক্ষত অবস্থায় রয়েছে। একটি জিনিষ পত্র ও খোয়া যায়নি কিংবা কোন দরজা জানালাতেও কোন চিহৃ নেই বিষয়টি আমাদের কাছে সন্দেহ জনক মনে হয়েছে।জিজ্ঞাসা বাদের এক পর্যায়ে সে তার স্ত্রী কে হত্যাকরেছে বলে আমাদেরকে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

তাকে আটক করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে সাপাহার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন (ওসি) আব্দুল হাই। উল্লেখ্য নজরুল ইসলাম তার স্ত্রীকে হত্যা করার পর বিষয়টি ডাকাতি হিসাবে চালিয়ে দেয়ার জন্য নিজের মুখে কসটেপ এঁটে দেয় ও গামছা দিয়ে দুই হাত বেঁধে প্রতিবেশী দের দরজায় টোকাদিলে এ সময় তারা তার মুখের টেপ ও বাধঁন খুললে সে তাদেরকে বলে যে আমার বাড়ীতে ডাকাত দল প্রবেশ করেছে, তারা আমার ছেলেকে কুপের মধ্যে ফেলে দিতে চায় আপনারা আমার ছেলেকে বাঁচান বলে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category