নওগাঁর সাপাহারকে অর্থনৈতিক অঞ্চল অনুমোদন করায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, নওগাঁ:  নওগাঁর সাপাহারে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার অনুমোদন লাভ করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশের লক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার বিকেলে উপজেলা সদরের জিরোপয়েন্টস্থ মুক্তমঞ্চে উক্ত কৃতজ্ঞতা প্রকাশ অনুষ্ঠানে নওগাঁ জেলা প্রশাসক হারুনুর রশিদের সভাপত্বি উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী সদস্য অতিরিক্ত উপ সচিব মোঃ হারুনুর রশিদ, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এ কে এম হাফিজ আক্তার বিপিএম (বার), জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি, নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া বিপিএম। সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি শাহিন মনোয়ারা হক, ১৪ বিজিবি ব্যাটলিয়ন ,পত্নীতলার অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল জাহিদ হাসান, ১৬ বিজিবি ব্যাটলিয়ন নওগাঁ’র অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ, বাংলাদেশ আ’লীগ নওগাঁ জেলা শাখার সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মালেক,উপজেলা চেয়রম্যান আলহাজ¦ শাহাজাহান হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কল্যাণ চৌধুরী প্রমূখ। এসময় ইলেক্ট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য যে, জেলায় বেকার যুবকদের মাঝে কর্ম সৃজন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি করে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার ঘোষণা দেন। সে থেকেই এলাকার এমপি সাধন চন্দ্র মজুমদার তৎকালীন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ শামসুল আলম শাহ চৌধুরী ও তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ফাহাদ পারভেজ বসুনীয়া সম্মিলিতভাবে নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী সাপাহার উপজেলাকে অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি দানের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে জোর সুপারিশ পাঠিয়েছিলেন। সে লক্ষ্যে নির্বাহী অফিসার তৎক্ষণাৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় উপজেলা সদরের অদূরে খেড়ুন্দা মৌজায় সাপাহার-খঞ্জনপুর বিওপি রাস্তার উত্তরপাশে ২৫৪.১৫ একর জমি অধিগ্রহণের প্রস্তাবের ফলশ্রুতিতে ১২ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে সাপাহারে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার অনুমোদন দেন।

সাপাহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যাণ চৌধুরী নওগাঁর সাপাহারে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নীতিগত অনুমোদনের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category