Friday, November 6th, 2020




দুই দেশের একটি মসজিদ!

দুই দেশের একটি মসজিদ!

তানভীর হোসাইন রাজু, কুড়িগ্রামঃ দেশ ভাগ হলেও কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের বাঁশজানি ঝাকুয়াটারী গ্রামে অবস্হিত প্রায় ২শ বছর আগের মসজিদটি এখনো ইতিহাসের স্বাক্ষী। মসজিদটিতে ভারত-বাংলাদেশের সীমান্তের দুই পাড়ের মানুষ এক সাথে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেন। দীর্ঘদিনের এই সম্প্রীতির বন্ধন এখনো অটুট রয়েছে। সীমান্ত জুড়ে নানা অপ্রীতিকর ঘঠনার জন্ম হলেও এখানকার মানুষ আত্মীয়তার সম্পর্ক গড়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্হাপন করেছেন। গ্রামটি আন্তর্জাতিক সীমানা পিলার দিয়ে ভাগ হলেও ভাগ হয়নি তাদের সমাজ।

এই এলাকাটিতে বাঙলাদেশের বাঁশজানি ঝাকুয়াটারী গ্রামে ৪৫টি পরিবারের তিন শতাধিক এবং ভারতের ৪৫টি পরিবারের আড়াইশ মানুষের বসবাস। ১৫ শতক জমির উপর অবস্হিত মসজিদটিই এখনো দুই বাংলার মেলবন্ধন হয়ে রয়েছে। বাংলাদেশী ও ভারতের নাগরিকরা জানান,দেশ ভাগ হলেও মসজিদ ও সমাজ ভাগ হয়নি।

দুই দেশের আইনি জটিলতার প্রভাব পড়েনি। সীমান্তের এই মসজিদ প্রায় ২শ বছরের পুরনো হলেও অবকাঠামোগত কোন উন্নতি হয়নি। সীমান্তে অবকাঠামো নির্মানে আন্তর্জাতিক আইনি জটিলতা থাকায় এটি সম্ভব হচ্ছে না। দুই বাংলার মানুষদের যৌথ ভাবে আর্থিক সহায়তা দিয়ে অস্হায়ি অবকাঠামো নির্মাণ ও মেরামত করে থাকেন। ঝাকুয়াটারী জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন নজরুল ইসলাম জানান, আযানের ধ্বনিতে দুই বাংলার মুসল্লিরা ছুটে আসেন নামাজ আদায় করতে।

শুক্রবার জুম্মার নামাজের দিন সীমান্তের এই মসজিদটি আরো বেশি প্রাণবন্ত হয়ে উঠে। এ বিষয়ে ভুরুঙ্গামরী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরন্নবী চৌধুরী বলেন, ঐত্যিহাসিক এই মসজিদটির মাধ্যমে দারিদ্র পীড়িত জেলা কুড়িগ্রামকে তুলে ধরার জন্য এই মসজিদ এবং যোগাযোগ ব্যাবস্হা উন্নয়নে প্রকল্প নেয়া হবে।

এস ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category