ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে আগুন আতঙ্কে সব রোগীরা বাইরে

রামিম হাসান, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ফায়ার এক্সটিংগুইশার পরীক্ষার সময় সৃষ্ট ধোঁয়া রোগীদের মধ্যে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় আতঙ্কে হাসপাতালের সব রোগী বাইরে বের হয়ে আসে। এতে হুড়োহুড়ি করে বের হতে গিয়ে অনেকেই আঘাত প্রাপ্ত হয়। মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার দিলীপ কুমার সরকার জানান, সদর হসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফায়ার সার্ভিসের কোন প্রকার অনুমতি ছাড়াই গণপূর্ত বিভাগ থেকে দেওয়া ২৯ টি ফায়ার এক্সটিংগুইশার (অগ্নী নির্বাপক) হাসপাতাল চত্তরে আগুন ধরিয়ে পরীক্ষা করছিল। এসময় সৃষ্ট ধোঁয়া হাসপাতালে রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় রোগী ও তাদের স্বজনদের অনেকেই হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৩ টি ইউনিট ঘটনাস্তলে পৌছে রোগীদের শান্ত করে। তবে কর্তৃপক্ষের উচিৎ ছিল ফায়ার সার্ভিসকে জানিয়ে পরীক্ষা করা এবং আগে থেকে মাইকিং করা।

হাসপাতালে ভর্তি রোগীর স্বজনরা জানান, আমরা হুড়োহুড়ি করে নামার সময় অনেকেই আঘাদপ্রাপ্ত হন। সব সিট ছেড়ে নিচে নেমে আসে রোগীরা।
সদর হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডাক্তার আয়ুব আলী এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জানান, অসাবধানতা বশতঃ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফিরোজ আলী জানান, আমরা ফায়ার এক্সটিংগুইশার পরীক্ষা করছিলাম। এসময় ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়লে এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনার সৃষ্টি হয়। আমাদের অত্যন্ত ভুল হয়েছে ফায়ার সার্ভিসকে না জানিয়ে পরীক্ষা করা। ভবিষ্যতে এমন ভুল আর হবে না বলে জানান এই গণপূর্ত কর্মকর্তা।

 

এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category