উদানা ঝড়ের পরও চতুর্থ ম্যাচে হারলো শ্রীলংকা

খেলার খবর:  স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার পর নয় নম্বর ব্যাটসম্যান ইসুরু উদানার ৫৭ বলে ৭৮ রানের পরও চতুর্থ ওয়ানডেতে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৬ উইকেটে হারলো সফরকারী শ্রীলংকা। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল প্রোটিয়ারা। দল হারলেও ম্যাচ সেরা হয়েছেন উদানা।
প্রথম তিন ম্যাচ জিতে সিরিজ আগেই নিশ্চিত করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তাই সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ জিতে শ্রীংলকাকে হোয়াইটওয়াশের মিশন শুরু করে প্রোটিয়ারা। নতুন লক্ষ্যের প্রথম লড়াইয়ে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং বেছে নেয় স্বাগতিকরা। বল হাতে নিয়ে ইনিংসের শুরু থেকেই শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরে দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। এক পর্যায়ে ৯৭ রানের মধ্যে ৭ উইকেট হারিয়ে বসে লংকানরা।
পতন হওয়া সাত ব্যাটসম্যানের মধ্যে মাত্র তিনজন দু’অংকের কোটা স্পর্শ করতে পারেন। তাদের মধ্যে আবিস্কা ফার্নান্দো ২৯, কুশল মেন্ডিস ২১ ও থিসারা পেরেরা ১২ রান করেন। এরমধ্যে তিন জন শিকার হন দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার এনরিচ নর্টির।
শতরানের আগেই সাত ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে সম্মানজনক সংগ্রহ দাঁড় করানোর চিন্তাও করেনি শ্রীলংকা। সেই চিন্তা আরও বড় আকার নেয় ১৩১ রানে নবম উইকেট হারানোর পর। কিন্তু নয় নম্বরে ব্যাট হাতে নামা বাঁ-হাতি পেসার উদানা দেখিয়েছেন কিভাবে ব্যাটিং করতে হয়। তাও বিধ্বংসী রুপে। উইকেটের চার পাশে চার-ছক্কার বাহার নিয়ে বসেছিলেন তিনি।
৩৬তম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার সফল পেসার নর্টি পরপর তিনটি ছক্কা মেরে ৪৩ বলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন উদানা। হাফ-সেঞ্চুরির পরও নিজের ব্যাটিং কারিশমা ধরে রাখেন তিনি । যার ফলে ২শ রানের কোটা পেরিয়ে যাবার স্বপ্ন দেখতে শুরু করে শ্রীলংকা। কিন্তু ৪০তম ওভারের দ্বিতীয় বলে উদানা ঝড় থামিয়ে দেন দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার আন্দিলে ফেলুকুওয়াও। ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৫৭ বলে ৭৮ রান করেন উদানা। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে তার পতনে ৬৪ বল বাকী থাকতে ১৮৯ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলংকা। দক্ষিণ আফ্রিকার নর্টি ৫৭ রানে ৩ উইকেট নেন।
জয়ের জন্য ১৯০ রানের লক্ষ্যে শুরুতেই উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দলীয় ২১ রানে ফিরে যান রেজা হেনড্রিক্স। ৮ রান করেন তিনি। এরপর আরেক ওপেনার কুইন্ট ডি কক ও আইডেন মার্করামের ব্যাটিং নৈপুন্যে শতরানের কোটা পেরিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর। ১১০ রানের মধ্যে কক ও মার্করাম ফিরে গেলেও, দলের জয় নিশ্চিত করেন অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস, ডেভিড মিলার ও জেপি ডুমিনি।
কক ৫৭ বলে ৫১ ও মার্করাম ৩২ বলে ২৯ রান করে আউট হন। ডু-প্লেসিসের ব্যাট থেকে আসে ৩৮ বলে ৪৩ রান। দলীয় ১৪৪ রানে ডু-প্লেসিস আউট হলেও, মিলার-ডুমিনি ম্যাচ শেষ করে মাঠ ছাড়েন। মিলার ২৫ ও ডুমিনি ৩১ রানে অপরাজিত ছিলেন। তখনও ম্যাচের ১০৩ বল বাকী ছিলো। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ৪১ রানে ৩ উইকেট শিকারও শ্রীলংকাকে লড়াই করার সুযোগ করে দিতে পারেনি।
কেপটাউনে আগামী ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচ।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শ্রীলংকার : ১৮৯/১০, ৩৯.২ ওভার (উদানা ৭৮, ফার্নান্দো ২৯, নর্টি ৩/৫৭)।
দক্ষিণ আফ্রিকা : ১৯০/৪, ৩২.৫ ওভার (কক ৫১, ডু-প্লেসিস ৪৩, ডি সিলভা ৩/৪১)।
ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : ইসুরু উদানা (শ্রীলংকা)।
সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা।

সুত্র: বাসস

এনআই/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category