উঠতি বয়সী কলেজ ছাত্রদের বিপথে ধাবিত করছেন বিপাশা

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ: কলেজ পড়ুয়া উঠতি বয়সী যুবক ছেলেদের বিপথে টেনে সোনার জীবন ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন বিপাশা। অনুসন্ধানে জানা যায়, নীলফামারীর সৈয়দপুরের পুরাতন বাবুপাড়া (অফিসার্স কলোনী) হায়দারের মেয়ে বিপাশা হায়দার মাহমুদা (নুর) মাতা: ইয়াসমিন এখন সে কৌশলে কম বয়সের ছেলেদের সাথেই করছে যৌন ব্যবসা।
অভিযোগ উঠেছে বিপাশা এখন ছলনাময়ী নারী, সে সব সময় ভদ্র ঘরের ছেলেদের ভালোবাসার লোভ দেখিয়ে নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেল করতে বাধ্য করে। বিশেষ সূত্রে জানা যায়, নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার কাজীর হাট মহল্লার ইয়াছিন আলীর ছেলে সরফরাজ উদ্দিন কে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তার সাথে আগে জোর করে দৈহিক মেলামেশা করে। পরে তাকে ব্ল্যাকমেল করে টাকা চায় । সে অনেক কিছু দেবার পরও সে আর কোনো টাকা দিতে পারবে না বলে তাকে বিয়ের মিথ্যা কাবিন নামা বানিয়ে মামলা করে বিপাশা। এমন কি তার একটি চক্র তৈরি করা আছে সাথে তার মা বাব ফুফু জড়িত আছে বলে অভিযোগ কারী অভিযোগ করেন। বিয়ের কাগজ বানানোর পর সে দেনমহরের টাকা আদায় করার জন্য মামলা করে । যাহা করেছে সরফরাজের সাথে, সরফরাজকে জোর করে দৈহিক মেলামেশা করাতে বাধ্য করে বিয়ের কাগজ করে। আবার সাথে সাথে তালাকের ব্যবস্থা করে দেয় অতপর দেন মহরের মাললা করে। সেই মামলাতে সরফরাজ এক মাস দশ দিন হাজত খেটে তারপর তার জামিন হয় হায় কোর্ট থেকে। এমন ধরনের কাজ সে আরো অনেক ছেলেদের সাথে করেছে ।
স্থানীয়রা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, বিপাশার বয়স অনেক, অথচ সে কম বয়সি ছেলেদের সাথে যৌন সম্পর্ক করে SSC আর HSC ক্লাস এর ছেলেদের সাথে যৌন সম্পর্ক করে। আরো জানা যায়, তারপর ব্ল্যাকমেল করে টাকা চায়, তারা বাধ্য হয়ে টাকা জোগাড় করে আর তাদের জীবনে কাল বৈশাখীর ঝড় নেমে আসে। সে ছেলেদের কে প্রথমে বলে যে তোমার সাথে ফ্রেন্ডশিপ করবো, তারপর আস্তে আস্তে বলে যে তোমার চোখ সুন্দর লাগে, তোমার ঠোঁট সুন্দর, এই ভাবে বলে আগে ছেলেদের কে দুর্বল করে দেয়। সরফরাজ একজন ছাত্র ছিল। তাই তাহার সঠিক বিচারের দাবি জানান  সরফরাজ ও তার পরিবার। যেন সুষ্ঠ ও ন্যায় বিচার পান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category