আজ পহেলা বৈশাখ: নববর্ষের নব আনন্দে সব বাঙালি

কালের সংবাদ ডেস্কঃ নতুনের ডাক নিয়ে বাঙালির ঘরে ফিরে আসছে বৈশাখ। ‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা’, শুদ্ধ সুন্দর এ প্রার্থনার মধ্য দিয়ে আগামীর পানে এগিয়ে যাওয়াই হোক বৈশাখের মূলমন্ত্র।আজ পুবের আকাশে ভেসে উঠছে নতুন দিনের সূর্য। নববর্ষের আহ্বানে জেগে উঠুক কোটি বাঙালির প্রাণ।

শুরু হলো পহেলা বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘অনাচারের বিরুদ্ধে জাগ্রত হোক শুভবোধ’।

কলগুঞ্জন মিশে যাবে আকাশে বাতাসে। বাউল, বৈষ্ণবের গানে মুখর হয়ে উঠবে শহর-বন্দর-গ্রাম। বসবে মেলা। নাগরদোলার ঘূর্ণিপাকের মধ্য থেকে ভেসে আসবে হৈ-হল্লা, যেখানে মিশে থাকবে ভয় আর আনন্দের মিশেল। শোনা যাবে শিশুদের হাতে হাতে ঘোরা ডুগডুগির কড়া-মিঠে তাল, বাঁশির চিকন ও ভরাট নানা আওয়াজ। পাঞ্জাবি আর বাসন্তী শাড়িতে তরুণ-তরুণীরা সাজাবে নিজেদের। বয়স্করাও বাদ যাবে না এদিনের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে।

পান্তা-ইলিশ, মিষ্টি, কটকটি আর রকমারি খাবারের গন্ধ ছড়িয়ে যাবে ঘরে ঘরে। সাম্প্রদায়িকতা ভুলে সমগ্র বাঙালি শুষে নেবে শিকড়ের সুধা। রমনা বটমূল থেকে শুরু করে দেশের নানা প্রান্তে চলবে বর্ষবরণ উৎসবের নানা আয়োজন। কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে হাজারো কণ্ঠ গেয়ে উঠবে রবিঠাকুরের কালজয়ী এ গান- ‘এসো হে বৈশাখ, এসো এসো…।’ পহেলা বৈশাখে বাঙালি সত্তা যেন নতুন করে জেগে ওঠে। তাই তো ধর্ম-বর্ণ, জাত-সম্প্রদায় ভুলে এটি হয়ে ওঠে বাঙালিয়ানার শ্রেষ্ঠ উৎসব।

রোববার সকাল ৬টা ১৫ মিনিটে রাগ ললিতের মধ্য দিয়ে সূর্যকে আহ্বান করা হয়। অসীম কুমারের পরিবেশনায় এই রাগ ললিত চলে প্রায় ১৩ মিনিট।রাগ ললিতের পর সম্মিলিতভাবে গাওয়া হয় ‘মোরে ডাকি লয়ে যাও মুক্তদ্বারে তোমার বিশ্বের সভাতে/ আজি এ মঙ্গলপ্রভাতে…’ গানটি। এরপর ‘আপনারে দিয়ে রচিলি রে কি এ আপনারই আবরণ!/খুলে দেখ দ্বার, অন্তরে তার আনন্দনিকেত…’সহ দুটি পরপর একক সংগীত পরিবেশিত হয়। এরপর আবার সম্মিলিত সংগীত। এভাবে চলতে থাকে ছায়ানটের অনুষ্ঠান। আবৃত্তি করা হয় কবিতা।

কবিতা আবৃত্তি, একক সংগীত, জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে ছায়ানটের এই অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান দেখতে সকাল থেকে ভিড় করতে থাকেন দর্শনার্থীরা।

ছায়ানটের মতো আজ সারা দেশেই চলছে নববর্ষকে বরণ। সারা দেশে দিনব্যাপী আয়োজন করা হয়েছে নানা অনুষ্ঠানের। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে বের হবে ঐতিহ্যবাহী মঙ্গল শোভাযাত্রা।

এম কে ইসলাম/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category